বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বেলা একটার দিকে পুলিশ জানতে পারে মনিরার ঘরের ভেতর থেকে কোনো সাড়া শব্দ পাওয় যাচ্ছে না। পরে পুলিশ গিয়ে ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় বাথরুমের দরজাও বন্ধ ছিল। সেটি ভেঙে দেখতে পান, লোহার অ্যাঙ্গেলের সঙ্গে ওড়নায় দুই প্রান্তে মা ও ছেলের লাশ ঝুলছে। লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জেরে তাঁরা আত্মহত্যা করেছেন।

ওসি আরও বলেন, একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। তাতে মনিরা তাঁর স্বামী ও স্বামীর বড় ভাইয়ের দুই মেয়ের নাম লিখে গেছেন। বলা হয়েছে, তাঁদের মৃত্যুর জন্য এই তিনজন দায়ী। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। থানায় মামলা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন