বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই মামলার আসামিরা হলেন সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের কুষ্টিয়া কার্যালয়ের সাবেক উপসহকারী প্রকৌশলী মনিরুল ইসলাম (৩৬) ও তাঁর স্ত্রী আফরোজ খাতুন (৩৪)। তাঁরা কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিনারায়ণপুর ইউনিয়নের বেড়বারাদি গ্রামের বাসিন্দা। বর্তমানে মনিরুল ঢাকা-২ সড়ক উপবিভাগে উপসহকারী প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আফরোজা খাতুন তাঁর স্বামী মনিরুল ইসলামের সহায়তায় ২ কোটি ৯৭ লাখ ৩১ হাজার ৪৪৯ টাকার অসংগতিপূর্ণ সম্পদ অর্জন করেছেন ও দখলে রেখেছেন। অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের ২০০৪–এর ২৭(১) ধারাসহ দণ্ডবিধির ১০৯ ধারায় তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

প্রায় তিন কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে বিষয়ে কথা বলার জন্য সওজের সাবেক উপসহকারী প্রকৌশলী মনিরুল ইসলামের একাধিক মুঠোফোন নম্বরে কল করা হলে সেগুলো বন্ধ পাওয়া যায়। এ জন্য তাঁর বা তাঁর স্ত্রীর বক্তব্য জানা যায়নি।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. জাকারিয়া প্রথম আলোকে বলেন, আইন মোতাবেক তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন