বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার সকাল ১০টার দিকে নাগেশ্বরী উপজেলা সদর থেকে একটি অটোরিকশা পাঁচ যাত্রী নিয়ে কুড়িগ্রামে আসছিল। ধরলা সেতুর পূর্ব প্রান্তে সদর উপজেলার কুড়ারপাড় (কল্লাকাটা) এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক্টরের সঙ্গে অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই অটোরিকশার দুই যাত্রী মো. হাবিবুল্লাহ ও রাবেয়া খাতুন নিহত হন।
চালকসহ আহত যাত্রীদের কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নুর আলী (৫৫) নামের আরও এক যাত্রী মারা যান।

এ দুর্ঘটনায় আহত অপর তিনজনের মধ্যে নাগেশ্বরী উপজেলার বালাসীপাড়ার আইয়ুব আলীর ছেলে নুর মোহাম্মদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে অটোরিকশারচালক ইমান আলী চিকিৎসাধীন। তিনি কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা গ্রামের করিম উদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় আহত অটোরিকশার অপর যাত্রী হাবিবুর রহমান বেলগাছা ইউনিয়নের খলিলগঞ্জ এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে।

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা পুলক কুমার সরকার বলেন, ওই সড়ক দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে দুজন ও হাসপাতালে আনার পর একজন মারা যান।

এ বিষয়ে কুড়িগ্রাম সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খান মো. শাহরিয়ার বলেন, ট্রাক্টরটি আটক করা হয়েছে। তবে ট্রাক্টরচালক পলাতক। নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে লাশগুলো স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন