default-image

সাতক্ষীরার শ্যামনগর বাস টার্মিনাল–সংলগ্ন কালভার্টের ওপর থেকে পাওয়া নবজাতকটিকে দত্তক নিতে ১৯ জন আবেদন করেছেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা পর্যন্ত এসব আবেদন জমা পড়ে। তবে আবেদনের তারিখ রোববার পর্যন্ত বাড়িয়েছে প্রশাসন।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ও শিশুকল্যাণ বোর্ডের সদস্যসচিব শেখ সহিদুর রহমান জানান, মঙ্গলবার ভোরে আজান দিতে যাওয়ার সময় শ্যামনগর বাস টার্মিনাল মসজিদের মুয়াজ্জিন সামসুর রহমান টার্মিনাল–সংলগ্ন কালভার্টের ওপর একটি শিশুর কান্নার আওয়াজ শুনতে পান। পরে তিনি এগিয়ে দেখেন একটি থলের মধ্যে একটি নবজাতক কাঁদছে। তাৎক্ষণিক তিনি নবজাতককে উদ্ধার করে শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন এবং বিষয়টি লিখিতভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আ ন ম আবুজার গিফারিকে জানান।

শেখ সহিদুর রহমান আরও বলেন, কুড়িয়ে পাওয়া নবজাতকটি এখন শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে আছেন। গত মঙ্গলবারই উপজেলার উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যদি কেউ ছেলেশিশুটিকে দত্তক নিতে চান, তাহলে ৪ মার্চ বেলা ১১টার মধ্যে উপজেলা শিশুকল্যাণ বোর্ডের সভাপতি ও ইউএনওর কাছে তাঁকে লিখিত আবেদন করতে হবে। ওই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা পর্যন্ত ঢাকা, ঝিনাহদাহ, খুলনা, সাতক্ষীরাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সরকারি কর্মকর্তা, শিল্পপতি, ব্যবসায়ী, শিক্ষক, সেনা কর্মকর্তাসহ ১৯ জন আবেদন করেছেন। নানা বিষয় চিন্তা করে আবেদনের সময় আগামী রোববার পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। নবজাতকটি এখন সুস্থ আছে।

শ্যামনগর উপজেলা শিশুকল্যাণ বোর্ডের সভাপতি ও ইউএনও আ ন ম আবুজার গিফারি বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, যিনি যথাযথভাবে পরিচর্যা করে শিশুটি মানুষ করতে পারবেন এবং যার কোনো ধরনের সমস্যা থাকবে না, তাঁকে শিশুটির দায়িত্ব দেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন