বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয় সূত্র জানায়, আগের দিন রাতভর নদীতে নৌযান চলাচলে তেমন কোনো সমস্যা হয়নি। তবে আজ সকাল থেকে হঠাৎ করে নদী অববাহিকায় ঘন কুয়াশা পড়তে থাকে। একপর্যায়ে কুয়াশার বাড়তে থাকায় দুর্ঘটনা এড়াতে সকাল আটটার দিকে উভয় ঘাট থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। কুয়াশার ঘনত্ব কমে এলে প্রায় দেড় ঘণ্টা পর পুনরায় এ রুটে ফেরি চলাচল শুরু করা হয়।

আজ সকালে দৌলতদিয়া প্রান্তে দেখা যায়, ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের বাংলাদেশ হ্যাচারি পর্যন্ত যানবাহনের লম্বা লাইন তৈরি হয়েছে। বেশ কিছুক্ষণ ফেরি বন্ধ থাকায় ও ফেরিস্বল্পতার কারণে ঘাটে যানবাহনের বাড়তি চাপ তৈরি হয়েছে। তাই অনেক যাত্রীকে গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে ঘাটের দিকে এগিয়ে যেতে দেখা গেছে। আবার অনেকেই ঝুঁকি নিয়ে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারে করে পদ্মা নদী পাড়ি দিচ্ছেন।

default-image

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক শিহাব উদ্দিন জানান, কুয়াশার কারণে দৌলতদিয়া প্রান্তে সাতটি ফেরি এবং পাটুরিয়া প্রান্তে আরও আটটি ফেরি নোঙর করে রাখা হয়েছিল। ফেরি বন্ধ ও ফেরিস্বল্পতার কারণে যানবাহন পারাপার কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। তবে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়ে যাওয়ায় দ্রুতই যানবাহনের চাপ কমে যাবে বলে আশা করেন তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন