বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ বৃহস্পতিবার সকালে দৌলতদিয়া ঘাট ঘুরে দেখা যায়, সকালে ঘণ্টাখানেক ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় পণ্যবাহী গাড়ির দীর্ঘ সারি তৈরি হয়েছে। গোয়ালন্দ বাজারের পদ্মার মোড় থেকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার এলাকায় ঢাকামুখী শতাধিক পণ্যবাহী গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। ফেরিঘাটের কাছে প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকায় পণ্যবাহী গাড়ির সঙ্গে দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাসও রয়েছে।

যশোর বেনাপোল থেকে আসা ট্রাকচালক মোস্তফা বেপারী বলেন, গত মঙ্গলবার রাতে তিনি গোয়ালন্দ মোড়ে এসে আটকা পড়েছেন। দুই দিন অপেক্ষার পর আজ সকাল ছয়টার দিকে ঘাটের দিকে কিছুটা এগিয়েছেন। তবে এখনো যে পরিমাণ গাড়ি ফেরির অপেক্ষায় আছে, তাতে ফেরির নাগাল পেতে আরও দুই দিন লাগবে বলে মনে হচ্ছে।

ফরিদপুরের মধুখালী থেকে আসা চট্টগ্রামগামী ট্রাকচালক ফিরোজ শেখ বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে তিনি ফরিদপুর থেকে রওনা দিয়েছেন। দুই দিন ধরে ফেরিতে ওঠার জন্য অপেক্ষা করছেন। থাকা-খাওয়া সব গাড়িতেই করতে হচ্ছে। টয়লেটের ব্যবস্থা না থাকায় সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। আবার রাতে ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটছে। তাই শত কষ্ট করে হলেও গাড়িতেই বসে থাকতে হচ্ছে।

default-image

এই রুটে ফেরিস্বল্পতার কারণে যানজট কোনোভাবেই কমছে না। ঘাটসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তিন মাস আগেও দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে যানবাহন ও যাত্রী পারাপারের জন্য ১২টি রো রো (বড়) ফেরিসহ মোট ২১টি ফেরি চলাচল করত। তবে বর্তমানে ছোটবড় মিলিয়ে ১৫টি ফেরি চালু রয়েছে। বেশির ভাগ ফেরি পুরাতন হওয়ায় মাঝেমধ্যেই যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিচ্ছে।

গত বছরের ২৭ অক্টোবর পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ঘাটে পৌঁছানোর আগে একটি বড় ফেরি ডুবে যায়। এরপর কর্তৃপক্ষ পুরাতন চারটি বড় ফেরি মেরামতের জন্য ডকইয়ার্ডে পাঠায়। এ কারণে বড় ফেরির সংকট সৃষ্টি হয়। সব শেষ ১১ জানুয়ারি সকালে ভাষাসৈনিক গোলাম মাওলা নামের আরেকটি বড় ফেরি যান্ত্রিক ত্রুটিতে বিকল হয়ে যায়। ওই ফেরি এখন পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানা মধুমতীতে বসে আছে।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া কার্যালয়ের সহকারী ব্যবস্থাপক মো. নাসির খান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ফেরির সংকট আছে। একই সঙ্গে ঘাটের সংখ্যাও বাড়াতে হবে। মাঝেমধ্যে কুয়াশায় ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এ ছাড়া শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটের গাড়িগুলো দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাট ব্যবহার করছে। সব মিলিয়ে ফেরিঘাট এলাকা থেকে গাড়ির দীর্ঘ সারি তৈরি হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন