নিহত ব্যক্তির পরিবারের অভিযোগ, আজ সকালে আবুল কাশেম খান তাঁদের বাড়ির সামনে চাচাতো ভাই ছাদেক মিয়ার খলায় (ধান শুকানোর মাঠ) আমন ধান শুকাতে দেন। এ সময় ছাদেক মিয়া তাঁকে বাধা দিলে দুজনের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে ছাদেক মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে আবুল কাশেমের বুকে, মুখে ও মাথায় বেশ কয়েকটি ঘুষি ও লাথি দেন। এতে আবুল কাশেম আহত হয়ে মাটিতে পড়ে যান।

পরে আবুল কাশেমের স্বজনেরা তাঁকে উদ্ধার করে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে আবুল কাশেমের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে উভয় পরিবারের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) গালিব জুবায়ের বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই আবুল কাশেম খান নামের ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

জানতে চাইলে কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহনেওয়াজ মুঠোফোনে বলেন, নিহত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওই এলাকার পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে। সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের আটক করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন