নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সারোয়ার জাহান কাউসার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আজ দুপুরে জুলেখা বেগমসহ তাঁদের পরিবারের কয়েকজন একটি ডিঙি নৌকায় করে আত্মীয়ের বাড়িতে যাচ্ছিলেন। এ সময় গ্রামের সামনের হাওরে প্রবল বাতাস আর ঢেউয়ে নৌকাটি নড়াচড়া শুরু করলে জুলেখা বেগমের শিশুসন্তান তানজিনা (৭) নৌকা থেকে পানিতে পড়ে যায়। এ সময় সন্তানকে বাঁচাতে তিনি পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এ সময় নৌকাটিও ডুবে যায়। জুলেখা ডুব দিয়ে তাঁর সন্তানকে পানি থেকে তুলে অন্যের হাতে দিলেও তিনি নিজে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হন। কিছুক্ষণ পর স্থানীয় লোকজন তাঁকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেন।

সন্তানকে বাঁচাতে তিনি পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এ সময় নৌকাটিও ডুবে যায়।

কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। জুলেখা বেগমের স্বামী ঢাকা থেকে রওনা হয়েছেন। বাড়িতে এলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বন্যার পানিতে ভেসে এল আরেক নারীর লাশ

এদিকে কলমাকান্দা থানার ওসি আবদুল আহাদ খান জানান, আজ বিকেলে তিনটার দিকে কলমাকান্দার খারনৈ ইউনিয়নের খাগড়া গ্রামে বন্যার পানিতে ভেসে আসা অজ্ঞাত এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ওই নারীর বয়স আনুমানিক ৪০ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে হবে। লাশটি বস্ত্রহীন ও গলিত অবস্থায় ছিল বলে জানান ওসি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন