বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সকাল পৌনে ১০টার দিকে কেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী এ কে এম সাকিল রেজার জগ মার্কার পোলিং এজেন্ট সুজন মিয়াকে (৩৫) কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগে আটক করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সম্পর্কে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাসনিমুজ্জামান বলেন, সুজন মিয়া ভোটকেন্দ্রের শৃঙ্খলা নষ্ট করছিলেন। আইন না মেনে তিনি বারবার গোপন বুথে প্রবেশ করছিলেন। এ জন্য তাঁকে আটক করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নারী ভোটারদের ঢল
সকাল ১০টায় পৌরসভার সরকারি নাজির আখতার কলেজ কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় নারী ভোটারের দীর্ঘ লাইন। প্রখর রোদ উপেক্ষা করে কেন্দ্রের বাইরে কয়েক শ নারী ভোটার অপেক্ষা করছেন। গড় ফতেপুর মহল্লার শামসুন্নাহার নামে একজন নারী ভোটার দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘পয়লাবার ইভিএম মিশিনত ভোট দিবার আচ্চি। বিয়ান থ্যাকে ম্যালা ক্ষণ লাইনত দাঁড়ায় আচি। রোদত গাও পুড়ে যাচ্চে। অ্যাকনা ভোট দিবার আসে এত কষ্ট জানলে ভোট দিতেই আসতাম না।

সোনাতলা নাজির আখতার ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে ভোটার ১৭৯১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৮৫৩ এবং নারী ৯৩৮। সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত কেন্দ্রটিতে ভোট পড়েছে ৩২০টি বলে জানান কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সালাহ উদ্দিন।

default-image

কামারপাড়ার মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল কলেজ মহিলা ভোটকেন্দ্রে সকাল থেকেই নারী ভোটারদের দীর্ঘ লাইন। কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা জাকির হোসেন জানান, কেন্দ্রটিতে ভোটারের সংখ্যা ১ হাজার ৩৩৩। সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত কেন্দ্রটিতে ৩৫৩টি ভোট পড়ে। ভোট গ্রহণ চলছে সুষ্ঠুভাবে।

এ কেন্দ্রের ভোটর বুলবুলি বেগম বলেন, ‘অনেক আগ্রহ নিয়ে সকাল সকাল ভোট দিতে এসেছি। লাইনে দাঁড়িয়ে আছি।’

সোনাতলা সরকারি মডেল উচ্চবিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে দুপুর ১২টায় ভোট দিতে আসেন শিক্ষক ফারহানা সুলতানা। তিনি বলেন, ‘শিক্ষকতা পেশায় থাকার কারণে এত দিন শুধু ভোট নিয়েছি। ২৬ বছরের শিক্ষকতা জীবনে প্রথম ভোট দিলাম, তাও ইভিএমে। ভোটের সার্বিক পরিবেশ ভালো।’ এই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা শাফিউল ইসলামের তথ্যমতে, কেন্দ্রটিতে মোট ভোটারের সংখ্যা ১ হাজার ৩৫৩। এর মধ্যে পুরুষ ৬৫২ এবং মহিলা ভোটার ৭০১। দুপুর ১২টা পর্যন্ত কেন্দ্রটিতে ভোট পড়েছে ৫২২টি। এ কেন্দ্রের ভোটারদের উপস্থিতি তুলনামূলক কম।

সোনাতলা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৩ জন এবং কাউন্সিলর পদে ৪০ ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১১ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ভোটার ১৯ হাজার ৫২৩ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ১০ হাজার ১১৯ ও পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ৪০৪ জন। ১১টি ভোটকেন্দ্রে ৭০টি বুথে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন