default-image

কোভিড–১৯–এ আক্রান্ত হয়ে শেরপুরের কর্ণফুলী পেপার হাউসের স্বত্বাধিকারী মো. রেজাউল করিম ওরফে মুক্তা (৭৩) মারা গেছেন। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

রেজাউল করিম শেরপুর শহরের মাধবপুর এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

রেজাউল করিমের ছোট ভাই আয়কর আইনজীবী সেরাজুল করিম এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন প্রথম আলোকে।

রেজাউল করিম মৃত্যুর সময় দুই ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন।

সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. মোবারক হোসেন জানান, গত ৩০ জুলাই রেজাউল করিমের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়। প্রথমে বাসায় চিকিৎসা নেন তিনি। তাঁর ডায়াবেটিস ও হৃদ্‌রোগসহ বিভিন্ন জটিলতা ছিল। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে রাজধানীর গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

প্রয়াত ব্যবসায়ীর ভাই সেরাজুল করিম জানান, স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে আজ বুধবার রাতে শেরপুর পৌর ঈদগাহ মাঠে রেজাউল করিমের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে এবং পৌর চাপাতলী কবরস্থানে মরদেহ দাফন করা হবে। 

 ®রেজাউল করিমের মৃত্যুতে জাতীয় সংসদের হুইপ মো. আতিউর রহমান, শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) আসনের সাংসদ এ কে এম ফজলুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চন্দন কুমার পাল, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবীর, পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া, জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সাংসদ মো. মাহমুদুল হক, শেরপুর শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি আসাদুজ্জামান রওশন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0