default-image

যমুনা ব্যাংকের রাজশাহী শাখা থেকে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা আত্মসাতের দায়ে ব্যাংকটির সাবেক দুই কর্মকর্তার পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও ৭০ লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড করা হয়েছে। রাজশাহী বিভাগীয় স্পেশাল জজ মোসাম্মৎ ইসমত আরা ২৮ অক্টোবর এই দণ্ডাদেশ দেন। তবে আজ সোমবার রায়ের বিষয়টি প্রকাশ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) রাজশাহী জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের উপপরিচালক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মামলার রায় হয়েছে আগে, কিন্তু সোমবার রায়টি প্রকাশ করা হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্ত দুজন হলেন যমুনা ব্যাংকের রাজশাহী শাখার সাবেক সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মো. আবরার হোসেন খান ও সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার (ক্রেডিট) মাজহারুল ইসলাম। তাঁদের দুজনকেই ব্যাংক থেকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। মামলার অপর আসামি মাইনুল ইসলাম ইতিমধ্যে মারা গেছেন। তিনি একজন ব্যবসায়ী ও ব্যাংকটির ঋণগ্রহীতা ছিলেন। রায় ঘোষণার সময় দুই আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

বিজ্ঞাপন

মামলার নথি থেকে জানা যায়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে প্রতারণা, জালিয়াতি ও স্বাক্ষর জাল করে যমুনা ব্যাংকের ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এ অভিযোগে ২০১৩ সালের ৩০ জুলাই নগরের বোয়ালিয়া থানায় ব্যাংকের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হয়। পরবর্তী সময়ে মামলাটি দুদকে যায়। তদন্ত শেষে দুদকের সাবেক সহকারী পরিচালক (বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত) মো. আমিনুর রহমান ২০১৭ সালের ১১ এপ্রিল আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

দুদকের সরকারি কৌঁসুলি শহীদুল বলেন, রাষ্ট্রপক্ষের আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় দুই আসামিকে পাঁচ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড ও ৭০ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। দুদকের পক্ষে তিনি মামলাটি পরিচালনা করেন।

মন্তব্য পড়ুন 0