default-image

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে বোরো খেতের ধান ভাগ-বাঁটোয়ারা করা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। হারুন মিয়া (৫০) নামের ওই ব্যক্তি আজ বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তাঁর বুকে ও পিঠে সুলপির (ধারালো অস্ত্র) আঘাত ছিল।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার পুটামারা গ্রামে গতকাল বুধবার বিকেলে বোরো খেতের ধান ভাগ-বাঁটোয়ারা করছিলেন হারুন মিয়া ও নূর উদ্দিন। একপক্ষের ধান বেশি নেওয়া নিয়ে দুজনের স্ত্রীর বচসা হয়। এর জের ধরে হারুন ও নূর উদ্দিনের পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। লাঠিসোঁটা, সুলপিসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হন। এর মধ্যে হারুন সুলপির গুরুতর আঘাতে আহত হন। আহত লোকজনকে বুধবার সন্ধ্যার দিকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁদের মধ্যে আহত হারুন মিয়া বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে মারা যান।

একপক্ষের ধান বেশি নেওয়া নিয়ে দুজনের স্ত্রীর বচসা হয়। এর জের ধরে হারুন ও নূর উদ্দিনের পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সংঘর্ষে জড়িত থাকার অভিযোগে আইন উদ্দিন (৩২) নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন