default-image

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে সালিস বৈঠক শেষ করে ফেরার পথে ইন্তাজ আলী (৪৫) নামের এক সালিসকারকে হত্যার ঘটনার দ্রুত বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। আজ বৃহস্পতিবার সকালে কোম্পানীগঞ্জের ভোলাগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির সামনে এই মানববন্ধন হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ভোলাগঞ্জ গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা আরজ আলীর সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর প্রায় ছয় মাস ধরে বিরোধ চলছিল। এর জেরে স্বামীর নামে থানায় অভিযোগ করে বাবার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন স্ত্রী। পরে বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য স্থানীয় মুরব্বিরা সালিস বৈঠকের সিদ্ধান্ত নেন। ২৭ ফেব্রুয়ারি সকালে সালিস বৈঠক হয়।

সালিস বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় সালিসকার ব্যবসায়ী ইন্তাজ আলীকে এক যুবক ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাঁকে ছুরিকাঘাত করার অভিযোগে আরজ আলী (৩২) নামের ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় আরজ আলীর বিরুদ্ধে ২৮ ফেব্রুয়ারি কোম্পানীগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা করেন ইন্তাজ আলীর স্ত্রী রোজিনা বেগম।

ইন্তাজ আলী হত্যার বিচার দাবিতে ভোলাগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির সামনে বৃহস্পতিবার প্রায় ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন হয়। এ সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা সামছুল হক, স্থানীয় চান মিয়া, ব্যবসায়ী আব্বাস আলী, আবদুস সামাদ, মো. রজব আলী, নিহত ইন্তাজ আলীর ভাই আবদুল কুদ্দুছ, আবদুর রশিদ ও ছেলে আবদুস শহীদ বক্তব্য দেন। মানববন্ধন শেষে একই দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল বলেন, ইন্তাজ আলী হত্যা মামলার প্রধান আসামি আরজ আলী। তাঁকে ঘটনার পরপরই গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির সঙ্গে আর কেউ জড়িত আছেন কি না, তা জানতে পুলিশ তদন্ত করছে। ওই তদন্ত শেষ হলে দ্রুত অভিযোগপত্র দাখিল করে বিচারের প্রক্রিয়া শুরু করার চেষ্টা করবে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন