বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুল আনম চৌধুরীকে উদ্দেশ্য করে জয়নুল আবদিন বলেন, ‘সেলিম ভাই, বিনা ভোটের উপজেলা চেয়ারম্যান আপনি। বঙ্গভবনের নাটকের মতো আজ এসপি-ডিসিকে দিয়ে তিন দিনে কত নাটক আপনি করেছেন। নানা জায়গায় ঘুরিয়ে বিএনপির সমাবেশকে শহর থেকে অনেক দূরে ঠেলে দিয়েছেন, কিন্তু জনস্রোত থামাতে পারেননি।’

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন বলেন, ‘এই সরকার জনগণের সরকার নয়। এই সরকার ভোট চোরের সরকার। এই সরকার আমাদের ২৫ লাখ লোককে মামলা দিয়েছে। এই সরকারের পতন করতে হবে। এই সরকারের পদত্যাগের কোনো বিকল্প নেই। তাই সরকারকে অনতিবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে।’
বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সম্পাদক মাহবুবের রহমান বলেন, ‘আজকের এই জনসভা প্রমাণ করে, নোয়াখালীসহ সারা বাংলাদেশের মানুষ শেখ হাসিনাকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে যদি মুক্তি দেওয়া না হয়, যদি সুচিকিৎসার ব্যবস্থা না করা হয়, তাহলে নোয়াখালীসহ সারা বাংলাদেশকে অচল করে দেওয়া হবে।’

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম হায়দারের সভাপতিত্বে সমাবেশ সঞ্চালনা করেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান ও সদস্য মাহবুব আলমগীর। সমাবেশে বক্তৃতা করেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আইনজীবী আবদুর রহিম, কাজী মফিজুর রহমান, মামুনুর রশিদ, এ বি এম জাকারিয়া, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, কেন্দ্রীয় যুবদলের সহসভাপতি মোরতাজুল করিম, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি আনু মোহাম্মদসহ জেলা বিএনপি, সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন