কৃষকদের মাঝে সার ও বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাংসদ মতিয়া চৌধুরী। রোববার দুপুরে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে।
কৃষকদের মাঝে সার ও বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাংসদ মতিয়া চৌধুরী। রোববার দুপুরে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে। ছবি: প্রথম আলো

বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের বিচার কার্যকর করার সুসময় এসেছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, যেসব দেশে এসব খুনিরা পালিয়ে আছেন, সেই সব দেশের সরকারকে আমরা বলব, খুনিদের আশ্রয় দেওয়া কোনো সুসভ্য দেশের কর্মকাণ্ড হতে পারে না। সুষ্ঠু রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড হতে পারে না। এরা খুনি, এরা আসামি, এরা দণ্ডপ্রাপ্ত। মানবাধিকার নামে খুনিদের কোনো অধিকার নেই।

রোববার দুপুরে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার বন্যার্ত কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে সার ও সবজি বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ কৃষক লীগ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিজ্ঞাপন

সাবেক কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেন, কৃষিপ্রধান দেশ হিসেবে কৃষি ছাড়া এগিয়ে যাওয়া যাবে না। কৃষিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ দেশ গড়তে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি ও কৃষকবান্ধব বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও তা বাস্তবায়ন করেছেন। তিনি কৃষক লীগ প্রতিষ্ঠা করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ ধান, সবজি, মাছ, দুধ ও মাংসে স্বয়ংসম্পূর্ণ। কৃষিতে বিজ্ঞানের ছোঁয়াও আওয়ামী লীগ সরকার দিয়েছে।

বিএনপির সময় কৃষক সারের পেছনে দৌড়েছেন, আর এখন আওয়ামী লীগ সরকারের সময় সার কৃষকের পেছনে দৌড়ায়।
মতিয়া চৌধুরী

কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাংসদ মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘বিএনপির সময় কৃষক সারের পেছনে দৌড়েছেন, আর এখন আওয়ামী লীগ সরকারের সময় সার কৃষকের পেছনে দৌড়ায়। আজকে আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ, আজ সবজি বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে, সুগন্ধি চালও রপ্তানি হয়। কৃষিকে এগিয়ে নিতে কৃষকদের মাঝে শুধু বিনা মূল্যে সার ও উন্নত বীজ বিতরণ করাই নয়, ভর্তুকি দিয়ে উন্নত কৃষি যন্ত্রপাতিও বিতরণ করা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর্জা আজম, কৃষক লীগের সভাপতি সমীর চন্দ, মানিকগঞ্জ-১ আসনের সাংসদ এ এম নাঈমুর রহমান দুর্জয়, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মহীউদ্দীন, শিবালয় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কুদ্দুস প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে শিবালয়, ঘিওর ও দৌলতপুর উপজেলার ৬০০ কৃষকের মাঝে তিন কেজি করে ডিএপি সার ও পাঁচ প্রকারের সবজি বীজ বিতরণ করা হয়। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে আসা সহস্রাধিক নেতা-কর্মীর মাঝে ফলদ, বনজ ও ঔষধি গাছের চারা বিতরণ করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন