বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

খুলনা মহানগরে পাঁচটি হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হয়। এর মধ্যে দুটি বেসরকারি হাসপাতাল। হাসপাতালগুলোতে করোনা রোগীদের জন্য মোট শয্যা রয়েছে ৫৬৫টি। এর মধ্যে সরকারি হাসপাতালগুলোতে শয্যা রয়েছে ৩২৫টি। ১৫ দিন আগেও এসব হাসপাতালে শয্যার চেয়ে রোগীর সংখ্যা বেশি ছিল, বর্তমানে সেখানে বেশ কিছু করে শয্যা খালি পড়ে আছে। তবে সরকারি দুই হাসপাতালে থাকা ৩০টি আইসিইউ শয্যা পূর্ণই থাকছে।

হাসপাতালগুলোর দৈনিকভিত্তিক প্রতিবেদন থেকে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিচতলায় অবস্থিত ২০০ শয্যার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে একজন রোগী মারা গেছেন। আর শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে মারা গেছেন ২ জন। এ ছাড়া ওই সময়ের মধ্যে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট খুলনা সদর (জেনারেল) হাসপাতাল, বেসরকারি গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বেসরকারি সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কোনো রোগীর মৃত্যু হয়নি। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতেও কেউ মারা যাননি।

খুলনা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, মারা যাওয়া তিনজনের মধ্যে একজন খুলনা জেলার, বাকি দুইজন অন্য জেলা থেকে খুলনায় চিকিৎসা নিতে এসেছিলেন। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে একজন নারী, তাঁর বয়স ৩৫ বছর। আর অন্য দুইজনের বয়স ৬০ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে।

গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনায় ৮৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৯৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। শনাক্তের হার ২২ শতাংশ। এর আগের দিন শনাক্তের হার ছিল ২৭ শতাংশ। তবে তার আগের দিন ছিল ২১ শতাংশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন