default-image

খুলনা বিভাগে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্তের ২৪৫তম দিনে রোগীর সংখ্যা সাড়ে ২৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে আজ বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে নতুন করে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন ৪৫ জন। এ নিয়ে বিভাগে এখন করোনা রোগীর মোট সংখ্যা ২৩ হাজার ৫৩২। খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অধিদপ্তরের তথ্যমতে, বিভাগে করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪৩ জন সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে এ পর্যন্ত সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২ হাজার ২৩৪। শনাক্ত বিবেচনায় বিভাগে সুস্থ হওয়ার হার ৯৪ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, বিভাগে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৬ হাজার ৭৮২ জন রোগী শুধু খুলনা জেলাতেই শনাক্ত হয়েছেন।

খুলনা বিভাগের মধ্যে চুয়াডাঙ্গায় প্রথম কোভিড–১৯ রোগী শনাক্ত হয় গত ১৯ মার্চ। ৩ জুলাই ১০৭তম দিনে এসে বিভাগে রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার অতিক্রম করে। ২৩ জুলাই ১২৭তম দিনে রোগী ১০ হাজার এবং ১২ আগস্ট ১২৭তম দিনে রোগী ১৫ হাজার ছাড়ায়। ৫ অক্টোবর ২০১তম দিনে শনাক্তের সংখ্যা ২২ হাজার ছাড়ায়। এরপর গত ৪ নভেম্বর ২৩১তম দিনে শনাক্তের সংখ্যা ২৩ হাজার ছাড়ায়। আজ বুধবার রোগীর সংখ্যা সাড়ে ২৩ হাজার ছাড়াল।

বিজ্ঞাপন

২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে খুলনা জেলায় ১ জন কোভিড–১৯ রোগী মারা গেছেন। এ নিয়ে বিভাগে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৪১৩। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে জেলাভিত্তিক হিসাবে খুলনায় রয়েছেন ১০৪ জন, কুষ্টিয়ায় ৮০, যশোরে ৫০, চুয়াডাঙ্গা ও ঝিনাইদহে ৩৭ জন করে, সাতক্ষীরায় ৩১, বাগেরহাটে ২৬, মাগুরায় ১৩, মেহেরপুরে ১৫ এবং নড়াইলে ২০ জন রয়েছেন। বিভাগে আক্রান্তের হিসাবে মৃত্যুর হার প্রায় ১ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, বিভাগে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৬ হাজার ৭৮২ জন রোগী শুধু খুলনা জেলাতেই শনাক্ত হয়েছেন। এ ছাড়া বাগেরহাটে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ১৪ জন, চুয়াডাঙ্গায় ১ হাজার ৫৫০, যশোরে ৪ হাজার ২৫৭, ঝিনাইদহে ২ হাজার ১৫৫, কুষ্টিয়ায় ৩ হাজার ৫০২, মাগুরায় ৯৮২, মেহেরপুরে ৬৯৭, নড়াইলে ১ হাজার ৪৬৮ এবং সাতক্ষীরায় ১ হাজার ১২৫ জন করোনাভাইরাস পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0