বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৪ সালের ২১ জানুয়ারি অস্ত্রের একটি চালান যাবে এমন সংবাদের ভিত্তিতে পাইকগাছা উপজেলার কাটিপাড়া বাজারে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। একটি মোটরসাইকেলে তিনজন ওই পথ দিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ তাঁদের দাঁড় করিয়ে দেহ তল্লাশি করতে যায়। এমন সময় শহিদুল ইসলাম কোমর থেকে পিস্তল বের করে পুলিশের গলায় ঠেকিয়ে ধরে। গ্রাম পুলিশ আবদুল জলিল ওই ঘটনা দেখে এগিয়ে গেলে সন্ত্রাসীরা তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি করেন। গুলি জলিলের মাথা ভেদ করে বের হয়ে যায়। ঘটনাস্থলে মারা যান তিনি। পুলিশের অন্য একজন সদস্য এগিয়ে গেলে তাঁর রাইফেল কেড়ে নিয়ে অন্য দুই সন্ত্রাসী মোটরসাইকেল চালক আনোয়ারুল শেখ ও রাশেদ পালিয়ে যান।

ওই ঘটনায় পাইকগাছা থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আবু দাউদ শিকদার বাদী হয়ে শহিদুল গোলদার, রাশেদ গোলদার ও আনোয়ারকে আসামি করে পাইকগাছা থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় তিন দফায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন