default-image

খুলনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার রুহুল আমিন জামিন পেয়েছেন। সোমবার দুপুর ১২টার দিকে খুলনা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক শহিদুল ইসলাম তাঁর জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। ভার্চ্যুয়াল কোর্টে ওই জামিন আবেদন করা হয়। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হওয়ার পর গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি কারাগারে ছিলেন।

রুহুল আমিনের আইনজীবী আক্তার জাহান বলেন, ভার্চ্যুয়াল কোর্টে জামিন আবেদন করলে আদালত রুহুল আমিনের জামিন মঞ্জুর করেছেন। তাঁর জামিনের কপি কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আজ সোমবার অথবা আগামীকাল মঙ্গলবার তিনি কারগার থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

রুহুল আমিন শ্রমিক-কৃষক-ছাত্র-জনতা ঐক্য পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী ছিলেন। সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলো বন্ধ করে দেওয়ার পর শ্রমিকদের নিয়ে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রাম করে যাচ্ছিলেন তিনি। সর্বশেষ কাশিমপুর কারাগারে মারা যাওয়া লেখক মুশতাক আহমেদকে নিয়ে ফেসবুকে কয়েকটি পোস্ট করেছিলেন রুহুল আমিন। এ কারণে তাঁর বিরুদ্ধে দেশের মধ্যে অস্থিরতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি এবং আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়।

লেখক মুশতাক আহমেদ মারা যাওয়ার ঘটনায় গত ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি তাঁর নিজের ফেসবুক ওয়ালে কিছু মন্তব্য করেন রুহুল আমিন। ২৬ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টার দিকে তাঁর ভাড়া বাসা থেকে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ তাঁকে তুলে নিয়ে আসে। পরে তাঁর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়ে আদালতের কাছে সোপর্দ করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। আদালত দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। রিমান্ড শেষে জামিন আবেদন করলে আদালত তাঁর জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন