default-image

খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র ও খুলনা নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি তালুকদার আবদুল খালেকের টিকা গ্রহণের মধ্য দিয়ে খুলনায় করোনা টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

আজ রোববার সকাল ১০টার দিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন (টিকা) প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন খুলনার মেয়র। এরপর খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদও করোনার টিকা গ্রহণ করেন।

এ সময় খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন, খুলনা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালক এ টি এম মঞ্জুর মোর্শেদ, সিভিল সার্জন নিয়াজ মোহাম্মদ, খুলনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল আহাদ, উপাধ্যক্ষ মেহেদী নেওয়াজ, খুলনা সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কে এম আবদুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

খুলনা নগরে ১৩টি, জেলার নয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১টি করে এবং খুলনার জাহানাবাদ সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ১টি করোনাভাইরাস টিকাকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। মোট বুথ রয়েছে ৬০টি। টিকা দেওয়ার পাশাপাশি প্রতিটি কেন্দ্রেই নিবন্ধন প্রক্রিয়া চালু আছে।

বিজ্ঞাপন

সিভিল সার্জন নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, খুলনায় প্রাথমিক পর্যায়ে মোট ১ লাখ ৬৮ হাজার ডোজ করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হবে, যার মধ্যে সিটি করপোরেশন এলাকায় দেওয়া হবে ৪৮ হাজার ৯৬০ ডোজ। ইতিমধ্যে সব কেন্দ্রে টিকা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। নগরের ১৩টি কেন্দ্রের জন্য ২৯টি বুথের ২৯টি টিম এবং প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কেন্দ্রে তিনটি করে বুথে মোট ২৭টি টিমকে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রতিটি টিমে দুজন করে টিকাদানকারী এবং চারজন করে স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছেন। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টিকা দেওয়া হবে।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রথম পর্যায়ে ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়ে দুই শুক্রবার বাদ দিয়ে মোট ১২ দিন ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম চলবে। আগামী দুই সপ্তাহে খুলনার ৮৪ হাজার মানুষকে টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে। ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ পর তাঁদের দ্বিতীয় ডোজ প্রদান করা হবে। যাঁরা অনলাইনে নিবন্ধন করছেন, তাঁরাই প্রথম পর্যায়ে ভ্যাকসিন পাবেন। গত শুক্রবার পর্যন্ত খুলনায় প্রায় ১৩ হাজার জন ভ্যাকসিন নিতে নিবন্ধন করেছেন। প্রতিটি কেন্দ্রে সর্বোচ্চ ১৫০ জন হিসেবে দিনে ছয় থেকে সাড়ে ছয় হাজার জনকে টিকা দেওয়া হবে।

প্রথম পর্যায়ে অগ্রাধিকারভিত্তিক ১৫টি ক্যাটাগরির মানুষকে এই টিকা দেওয়া হবে। এ জন্য অগ্রাধিকার তালিকাভুক্ত সবাইকে জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমে www.surokkha.gov.bd ওয়েবসাইট বা গুগল প্লে স্টোর থেকে ‘সুরক্ষা অ্যাপস’ ডাউনলাডের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে হবে। তবে ৫৫ বছরের ঊর্ধ্বে সব নাগরিক নিবন্ধন করতে পারবেন, সে ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার তালিকায় থাকার প্রয়োজন নেই।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন