default-image

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ সময়ে করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তিদের মধ্যে চারজন মারা গেছেন। এ নিয়ে বিভাগে করোনায় সংক্রমিত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৫৭। বিভাগে করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তির মোট সংখ্যা ৩০ হাজার ৭৩৩।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) মো. মনজুরুল মুরশিদ আজ সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বিভাগে করোনায় সংক্রমিত হয়ে বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ২ হাজার ৮৩৬ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা–সংক্রান্ত দৈনিক প্রতিবেদনের তথ্য ঘেঁটে দেখা গেছে, গত এক সপ্তাহে খুলনা বিভাগে ১ হাজার ৯০ জনের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। প্রতিদিন গড়ে শনাক্ত হয়েছেন ১৫৬ জন। এই এক সপ্তাহে বিভাগে করোনায় মারা গেছেন ২৭ জন।

গত এক সপ্তাহে খুলনা বিভাগে ১ হাজার ৯০ জনের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। প্রতিদিন গড়ে শনাক্ত হয়েছেন ১৫৬ জন। এই এক সপ্তাহে বিভাগে করোনায় মারা গেছেন ২৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে খুলনা জেলায় রয়েছেন ৪৪ জন, কুষ্টিয়ায় ১৮, যশোরে ৪৭, চুয়াডাঙ্গা ৬, ঝিনাইদহে ১৩, সাতক্ষীরায় ৩, বাগেরহাটে ৪, মাগুরায় ৩ ও নড়াইলে ৮ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। এ সময়ে মেহেরপুরে কোনো রোগী শনাক্ত হননি।

বিজ্ঞাপন

খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় চুয়াডাঙ্গায় গত বছরের ১৯ মার্চ। গত ৩ জুলাই ১০৭তম দিনে এসে বিভাগে রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার অতিক্রম করে। ২৩ জুলাই রোগী ১০ হাজার এবং ১২ আগস্ট রোগী ১৫ হাজার ছাড়ায়। ৫ অক্টোবর শনাক্তের সংখ্যা ২২ হাজার, চলতি বছর ১ জানুয়ারি রোগীর সংখ্যা ২৫ হাজার, ৯ এপ্রিল ২৮ হাজার, ১৫ এপ্রিল ২৯ হাজার এবং ২১ এপ্রিল শনাক্তের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়ায়।

বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা এখন ৫৫৭। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে যশোর, কুষ্টিয়া, নড়াইল ও সাতক্ষীরায় একজন করে মারা গেছেন। এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে খুলনা জেলায় রয়েছেন ১৪৩ জন, কুষ্টিয়ায় ১০৬, যশোরে ৭০, ঝিনাইদহে ৫০, চুয়াডাঙ্গায় ৪৯, সাতক্ষীরায় ৪৩, বাগেরহাটে ৩২, মাগুরায় ও নড়াইলে ২৩ জন করে এবং মেহেরপুরে ১৮ জন রয়েছেন। বিভাগে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে মৃত্যুর হার প্রায় ১ দশমিক ৮১ শতাংশ।

বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা এখন ৫৫৭। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে যশোর, কুষ্টিয়া, নড়াইল ও সাতক্ষীরায় একজন করে মারা গেছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, বিভাগে জেলা হিসাবে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৮ হাজার ৯০২ রোগী শনাক্ত হয়েছে খুলনা জেলায়। এরপর রয়েছে বাগেরহাট, সেখানে শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৩২৫ জন। চুয়াডাঙ্গায় ১ হাজার ৮৫৫ জন, যশোরে ৬ হাজার ২১৫, ঝিনাইদহে ২ হাজার ৭৩০, কুষ্টিয়ায় ৪ হাজার ৫৬৫, মাগুরায় ১ হাজার ২০৪, মেহেরপুরে ৮৯৩, নড়াইলে ১ হাজার ৭৮৩ এবং সাতক্ষীরায় ১ হাজার ২৬১ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে।

খুলনার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে বর্তমানে ৬৩ জন রোগী চিকিৎসাধীন। এর মধ্যে আটজন আছেন আইসিইউতে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন