default-image

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার আমড়াগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন মোসা. শারমীন জাহান। শারমীন জাহানের স্বামী মো. মোশারেফ শরীফ ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন।

মোশারেফ শরীফ ওই নির্বাচনে পরাজিত হন। শারমীন জাহান দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী ও নেতা-কর্মীদের একটি অংশ।

আজ রোববার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক মাতুব্বর দলীয় প্রার্থী শারমীন জাহানের মনোনয়ন বাতিল করার জন্য দলের সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১১ এপ্রিল প্রথম ধাপে মঠবাড়িয়া উপজেলার আমড়াগাছিয়ার ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল শনিবার রাতে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়। আমড়াগাছিয়া ইাউনিয়নে শারমীন জাহান মনোনয়ন পান। এর আগে ৭ মার্চ উপজেলা আওয়ামী লীগ থেকে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পাঠানো পাঁচজন সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় শারমীন জাহানের নামও পাঠানো হয়। এরপর দলীয় মনোনয়ন পান শারমীন জাহান।

বিজ্ঞাপন

আমড়াগাছিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান মো. সুলতান মিয়া বলেন, ‘২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে আমি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করি। ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি মোশারেফ শরীফ বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় আমি হেরে যাই। ভোটের ফলাফলে আমি দ্বিতীয় ও মোশারেফ তৃতীয় হন। আমার দাদা ও বাবা ব্রিটিশ, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ আমলে ৬০ বছর চেয়ারম্যান ছিলেন। আমি চেয়ারম্যান ছিলাম। আমাকে দল মনোনয়ন না দিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর স্ত্রীকে নৌকা প্রতীক দেওয়ায় আমি অবাক হয়েছি। শারমীন জাহানের দলীয় কোনো পদ নেই। তিনি রাজনীতিও করেন না।’

দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরীফুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, ‘গত নির্বাচনে মোশারেফ শরীফ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন। একটি মহল মোশারেফকে দলীয় মনোনয়ন পাইয়ে দিতে পারবে না জেনে কৌশল করে তাঁর স্ত্রী শারমীনের নাম প্রার্থীর তালিকায় পাঠান। তালিকায় শারমীনের স্বামীর নাম উল্লেখ না করে বাবার নাম দেওয়া হয়। শারমীনের বাবা শামীম আখতার জামায়াতে ইসলামী দল করতেন। শারমীন আওয়ামী লীগের কোনো পদে নেই। অথচ আওয়ামী লীগে যোগ্য প্রার্থী থাকতে এমন বিতর্কিত প্রার্থীকে নৌকা দেওয়ায় দলের নেতা-কর্মীরা মেনে নিতে পারছেন না। আমরা শারমীনের মনোনয়ন বাতিল দাবি করছি।’

তবে শারমীন জাহান বলেন, ‘আমি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য। আমার স্বামীর সঙ্গে আমাকে মিলিয়ে ফেললে হবে না। আমার আর স্বামীর রাজনীতি আলাদা।’
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক বলেন, ‘শারমীন জাহানের স্বামী মোশারেফ গত ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন। তাঁর কারণে দলের প্রার্থী হেরে যান। আমি শারমীনের মনোনয়ন বাতিল চেয়ে দলের সভাপতির কাছে চিঠি দিয়েছি।’

পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার বলেন, মোশারেফ বিদ্রোহী প্রার্থী হলেও শারমীন তো বিদ্রোহী নন। তাই তাঁর নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন