default-image

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জের পানুর এলাকায় রেললাইনের স্লিপারের সঙ্গে গরু বেঁধে রেখে বাড়ি ফিরছিলেন তালেহা গ্রামের বাসিন্দা আছিয়া বেগম (৬৫)। ফেরার পথে শুনতে পান ট্রেন আসার হুইসেল। গরুকে বাঁচাতে দৌড়ে স্লিপার থেকে দড়ির বাঁধন খুলতে যান। কিন্তু ততক্ষণে ট্রেন চলে আসায় কাটা পড়েন আছিয়া।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে মোহনগঞ্জের পানুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আছিয়া বেগম তালেহা গ্রামের মৃত রওশন আলীর স্ত্রী।

দুর্ঘটনা ঘটার আগে আছিয়ার সঙ্গে কথা হয়েছে এমন কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দা ও মোহনগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি সূত্রে জানা গেছে, ঘাস খাওয়ানোর জন্য গরুকে রেললাইনের স্লিপারের সঙ্গে দড়ি দিয়ে বেঁধে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। এ সময় ময়মনসিংহ-মোহনগঞ্জ রেলপথে ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে আসে ২৬২ নম্বর লোকাল ট্রেন। শব্দ শুনেই আছিয়া গরু বাঁধার দড়ির বাঁধন খুলতে চান। এ সময় গরুটিকে বাঁচাতে পারলেও বৃদ্ধা ট্রেনের নিচে কাটা পড়েন। খবর পেয়ে মোহনগঞ্জ রেলওয়ে ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁর লাশ উদ্ধার করে।

ফাঁড়ির ইনচার্জ ও উপপরিদর্শক (এসআই) সমর বড়ুয়া বলেন, নিহত বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এ নিয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করা হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0