বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহত ব্যক্তির পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বল্লমঝাড় ইউনিয়নের দক্ষিণ ধানঘড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ হয়। ভোট গণনা শেষে সন্ধ্যায় ব্যালট বাক্স ও নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্র থেকে রওনা দেন কর্মকর্তারা। এ সময় পরাজিত এক সদস্যপ্রার্থীর সমর্থকেরা কর্মকর্তাদের যেতে বাধা দেন। এ সময় পুলিশ লাঠিপেটা ও রাবার বুলেট ছোড়ে। সেখানে হামিদুল গুরুতর আহত হন। ওই রাতেই তাঁকে গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়।

পরদিন শুক্রবার হামিদুলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকাল নয়টায় তিনি মারা যান।

নিহত হামিদুলের শ্যালক আরিফুল ইসলাম বলেন, পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেটে হামিদুল মারাত্মকভাবে আহত হন। তাঁর বুকে, কপালে, নাকে–পেটে ও মাথায় ১৫ থেকে ২০টি রাবার বুলেট বিদ্ধ হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আজ দুপুরে গাইবান্ধা সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুর রউফ মুঠোফোনে বলেন, ‘এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাইনি। বিষয়টি তদন্ত না করে কিছু বলা যাচ্ছে না।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন