default-image

চিকিৎসক ও নার্সকে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসাসেবা বন্ধ রয়েছে। ফলে চিকিৎসা নিতে এসে রোগীরা ফিরে যাচ্ছেন। তবে ভর্তি রোগী ও জরুরি বিভাগে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে।

গত মঙ্গলবার রাতে হাসপাতালে ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রের মৃত্যু হলে ছাত্রের আত্মীয়স্বজনেরা ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর অভিযোগ এনে চিকিৎসককে লাঞ্ছিত ও দুই নার্সকে মারধর করেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল বুধবার সকাল থেকে হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসাসেবা বন্ধ রাখা হয়। আজও বহির্বিভাগে চিকিৎসাসেবা বন্ধ রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

চিকিৎসক ও নার্সদের দাবি, যতক্ষণ পর্যন্ত হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত তাঁরা কর্মস্থলে ফিরবেন না।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, মঙ্গলবার গাইবান্ধা সদর উপজেলার গিদারি ইউনিয়নের ব্যাপারীপাড়া গ্রামের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র হাসিব মিয়া অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে রাত সাড়ে আটটার দিকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে তার মৃত্যু হয়। এই মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ছাত্রের আত্মীয়স্বজনেরা সে সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক সুজন পাল, দুই নার্স আরতি দেবী ও স্বপ্না সরকারের ওপর হামলা চালিয়ে তাঁদের লাঞ্ছিত ও মারধর করেন।

গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মেহেদী ইকবাল বলেন, চিকিৎসক ও নার্সদের অনুরোধ করার পরও তাঁরা বহির্বিভাগে চিকিৎসাসেবা বন্ধ রেখেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন