default-image

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের চান্দিনা চৌরাস্তার তেলিপাড়া এলাকা থেকে অপহৃত সাড়ে তিন বছরের শিশুকে উদ্ধার করে তার মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া এক অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন বাসন থানা-পুলিশ অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধার করে ওই অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করে।

উদ্ধার হওয়া শিশুটির নাম পাখি। সে বরিশাল জেলার উজিরপুর থানার জামির বাড়ি এলাকার লিটন বিশ্বাসের মেয়ে। গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম মো. সিরাজ (২২)। তিনি ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর থানার মানিকদীর পশ্চিমপাড়া এলাকার মো. বাবুলের ছেলে।

অপহরণকারীরা শিশুটির বাবা লিটন বিশ্বাসের মুঠোফোনে কল করে তাঁর শিশুকন্যাকে অপহরণের বিষয়টি জানিয়ে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। শিশুটির বাবা অপহরণকারীর দেওয়া মুঠোফোন নম্বরে পাঁচ হাজার টাকা পাঠান।

শিশুটির মা ঝুমুর বিশ্বাস বলেন, স্বামী লিটন বিশ্বাসের স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকরির সুবাদে তাঁরা গাজীপুর সিটির বাসন থানার তেলিপাড়া এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকেন। ৩ এপ্রিল তাঁদের পাশের ঘরে মো. রহমত উল্লাহ (২৬) নামের এক ভাড়াটিয়া ওঠেন। পাশাপাশি ঘর হওয়ায় মেয়ে পাখিকে রহমত কোলে নিয়ে আদর করতেন। সেই সুবাদে গত মঙ্গলবার সকালে রহমত উল্লাহ ও মো. সিরাজ উদ্দিন নামের তাঁর এক সহযোগী তাঁদের বাসায় আসেন। পরে মেয়ে পাখিকে দোকানে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে তার মা ঝুমুর বিশ্বাসের কাছ থেকে নিয়ে যান। এক ঘণ্টা অতিবাহিত হওয়ার পরও মেয়েকে নিয়ে বাসায় না ফেরায় ঝুমুর বিশ্বাস আশপাশের দোকানে খোঁজাখুঁজি করেন। পরে বেলা দেড়টার দিকে অপহরণকারীরা শিশুটির বাবা লিটন বিশ্বাসের মুঠোফোনে কল করে তাঁর শিশুকন্যাকে অপহরণের বিষয়টি জানিয়ে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন।

বিজ্ঞাপন

অপরহরণকারীরা আরও জানান, রহমত উল্লাহর বাসার জানালার কাছে একটি চিঠি লিখে রাখা হয়েছে। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, চিঠিতে লেখা রয়েছে মুক্তিপণের টাকা না দিলে শিশুটিকে মেরে ফেলা হবে। এ সময় শিশুটির বাবা অপহরণকারীর দেওয়া মুঠোফোন নম্বরে পাঁচ হাজার টাকা পাঠান। টাকা পাঠানোর পর পুনরায় আরও টাকা পাঠানোর জন্য হুমকি দেন অপহরণকারীরা। পরে নিরুপায় হয়ে বাসন থানায় শিশুটির পরিবার মামলা করে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক জানান, শিশুটির মা বাদী হয়ে সিরাজ ও রহমত উল্লাহর নাম উল্লেখ করে থানায় অপহরণের মামলা করেছেন। এজাহারভুক্ত দুই আসামির একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অপর আসামি রহমত উল্লাহকে গ্রেপ্তারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যাহত।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন