বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে আসাদুজ্জামানের বাবা সেলিম হোসাইন জানান, ২০ সেপ্টেম্বর সকাল ৭টায় তাঁর ছেলে বাসা থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে যায়। এরপর সকাল সাড়ে আটটায় সে কারখানা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হয়। বিকেল চারটায় কারখানা থেকে হাবিব নামের একজন তাঁদের মুঠোফোনে কল করে আসাদুজ্জামানের নিখোঁজ হওয়ার খবর জানান। পরিবারে লোকজন খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান না পেয়ে পরদিন কাশিমপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। পুলিশ নিখোঁজ আসাদুজ্জামানের কোনো সন্ধান দিতে না পারায় ২৪ সেপ্টেম্বর তিনি স্থানীয় র‍্যাব ক্যাম্পে অভিযোগ করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত পুলিশ বা র‍্যাব তাঁর ছেলের কোনো সন্ধান দিতে পারেনি।

পুলিশ নিখোঁজ আসাদুজ্জামানের কোনো সন্ধান দিতে না পারায় ২৪ সেপ্টেম্বর র‍্যাব ক্যাম্পে অভিযোগ করে পরিবার। কিন্তু এখন পর্যন্ত পুলিশ বা র‍্যাব কোনো সন্ধান দিতে পারেনি।

সংবাদ সম্মেলনে আসাদুজ্জামানের স্ত্রী, মা ও দুই ভাই উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা বলেন, প্রায় তিন বছর পূর্বে আসাদুজ্জামান বিয়ে করেছেন। তাঁর ১০ মাস বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। আসাদুজ্জামানের কোনো সন্ধান না পেয়ে পরিবারের সবাই দুশ্চিন্তায় আছেন।

কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব-এ খোদা বলেন, এ রকম কোনো জিডি করে থাকলেও বিষয়টি মনে পড়ছে না। তবে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন