default-image

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার আমতলী এলাকায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে ট্রাক ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কলেজের এক দপ্তরি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন শিশুসহ চারজন। ঘটনার পর চালক ও তাঁর সহযোগী ট্রাক নিয়ে পালিয়ে গেছেন।

নিহত ব্যক্তি হলেন কালিয়াকৈর উপজেলার বহেড়াতলী এলাকার আনার উদ্দিনের ছেলে রহুল আমিন (৩৫)। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের দপ্তরি ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রহুল আমিন আজ সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে তাঁর কর্মস্থল উপজেলার চন্দ্রায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজে যাচ্ছিলেন। এ সময় ওই অটোরিকশাতে আরও তিনজন যাত্রী ছিলেন। সকাল ৮টার দিকে অটোরিকশাটি কালিয়াকৈর-ফুলবাড়িয়া আঞ্চলিক সড়কে উপজেলার আমতলী এলাকায় পৌঁছায়। একটি ট্রাক ঘোরানোর চেষ্টা করলে সেটির সঙ্গে অটোরিকশার সংঘর্ষ হয়। এ সময় ঘটনাস্থলে অটোরিকশার যাত্রী রহুল আমিন মারা যান।

বিজ্ঞাপন

পরে এলাকাবাসী আহত আসাদুজ্জামান (৩৫), তাঁর স্ত্রী শিখা বেগম (২৫) ও দুই বছরের ছেলে আয়ান এবং অটোরিকশারর চালক আবু তাহেরকে (৪৫) উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। আহতদের অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁদের ঢাকায় পাঠানো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রুহুলের লাশ উদ্ধার করে।

কালিয়াকৈর থানার ফুলবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) জামাল উদ্দিন বলেন, ট্রাক ও অটোরিকশার সংঘর্ষের ঘটনায় একজন নিহত ও ৪ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। চালক ও তাঁর সহযোগী পালিয়ে যাওয়ায় তাঁদের আটক করা যায়নি।

মন্তব্য পড়ুন 0