default-image

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে যাত্রীবাহী ট্রেন ও বাসের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২ হয়েছে। আজ শনিবার ভোররাত সাড়ে চারটার দিকে জয়দেবপুর-উত্তরবঙ্গ রেলপথের সোনাখালী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় ট্রেনটি ইঞ্জিনে আটকে বাসটিকে টেনে আধা কিলোমিটার সামনে নিয়ে যায়।

এ ঘটনার পর থেকে ঢাকার সঙ্গে উত্তরবঙ্গে ট্রেন চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যায়। দুর্ঘটনাকবলিত বাস সরিয়ে নেওয়ার পর এই পথে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

বিজ্ঞাপন

কালিয়াকৈর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজিব চক্রবর্তী আজ প্রথম আলোকে বলেন, চিলাহাটি থেকে ছেড়ে আসা নীলসাগর ট্রেনটি ভোররাত সাড়ে চারটার দিকে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলা হয়ে ঢাকায় যাচ্ছিল। যাওয়ার পথে কালিয়াকৈর উপজেলার সোনাখালী রেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় একটি বাসের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ট্রেনটি ইঞ্জিনে আটকে বাসটিকে আধা কিলোমিটার সামনে নিয়ে যায়। এরপর ট্রেনটি থেমে যায়। এতে বাসটি দুমড়েমুচড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই এক নারী নিহত ও কমপক্ষে পাঁচজন আহত হয়েছে। নিহত ও আহত ব্যক্তিরা বাসের যাত্রী। স্থানীয় লোকজন হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মাসুদ মিয়া নামের এক ব্যক্তি মারা যান। তাঁর বয়স আনুমানিক ২৭ বছর। এর আগে এ দুর্ঘটনায় নিহত নারীর নাম-পরিচয় জানা যায়নি। তাঁর বয়স আনুমানিক ৩৫ বছর।
এ বিষয়ে জয়দেবপুর রেলওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল মান্নান জানান, দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি রেললাইন থেকে সরিয়ে নেওয়ার পর সকাল সাড়ে নয়টা থেকে জয়দেবপুর-উত্তরবঙ্গ রেলপথে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

মন্তব্য পড়ুন 0