default-image

গাজীপুরে ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ডুয়েট) চতুর্থ বর্ষের সমাপনী পরীক্ষার দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক থেকে শুরু করে ক্যাম্পাসের ভেতরে প্রশাসনিক ভবন, একাডেমিক ভবনসহ সব অফিস ভবনের সামনে এই কর্মসূচি পালিত হয়। পরে শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। বেলা আড়াই পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা সেখানেই ছিলেন।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিভিন্ন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের একাডেমিক সেশন শেষ হয়ে গেছে। গত বছর নভেম্বরে পরীক্ষা শেষ হয়ে ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে তা সম্ভব হয়নি। নিয়ম অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত একাডেমিক সূচি অনুসারে গত ২০ জানুয়ারি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশিত হয়। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে পরীক্ষা শুরু হওয়া কথা ছিল। কিন্তু সরকারি ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে ২৩ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের সভায় এই পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করা হয়।

বিজ্ঞাপন

কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, চার বছরের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করে শিক্ষার্থীরা এখানে ভর্তি হন। বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএসসি ইন ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করতে আরও চার বছর লাগে। অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় এখানে স্নাতক সম্পন্ন করতে তিন বছর বেশি লেগে যায়। এ কারণে শিক্ষার্থীদের সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা কমে যায়। আগামী দুই মাসের মধ্যে চতুর্থ বর্ষের সমাপনী পরীক্ষা শেষ করতে না পারলে অনেকেই সরকারি চাকরিতে আবেদনের সুযোগ হারাবেন।

শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বিশেষ বিবেচনা সাপেক্ষে ২০১৩ সালের এসএসসি পাস করা শিক্ষার্থীদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের স্নাতক চতুর্থ বর্ষের স্থগিত করা পরীক্ষা নেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু ২০১০ সালে এসএসসি পাস করা ডুয়েট শিক্ষার্থীদের চতুর্থ বর্ষের সমাপনী পরীক্ষা স্থগিত রয়েছে। তাঁদের পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগপর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

এ বিষয়ে ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হাবিবুর রহমান বলেন, বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। এখনই কোনো সিদ্ধান্ত দেওয়া যাচ্ছে না। সব বিষয়ে বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন