default-image

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে একটি সুতা তৈরির কারখানার ভেতরে এক নারী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আজ শনিবার দুপুরে ওই নারী শ্রমিকের মা বাদী হয়ে কারখানার এক সহকর্মী শ্রমিককে অভিযুক্ত করে কালিয়াকৈর থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম আইয়ুব আলী (১৮)। তিনি নীলফামারীর সদর থানার কুড়িগ্রামপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

বাদীর পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই নারী শ্রমিক অনেক দিন ধরেই কালিয়াকৈর উপজেলার গোয়ালবাথান এলাকায় বাসা ভাড়া থেকে খাড়াজোড়া এলাকায় জাহানারা স্পিনিং মিলে কাজ করছেন। প্রতিদিনের মতো গতকাল শুক্রবার রাতের পালায় ডিউটি করছিলেন তিনি। আনুমানিক রাত তিনটার দিকে ওই নারী হাত-মুখ ধোয়ার জন্য কারখানার ভেতরে ওয়াশরুমে যান। এ সময় একই কারখানার শ্রমিক আইয়ুব আলী সেখানে যান। পরে আইয়ুব ওই নারী শ্রমিকের মুখ চেপে ধরে তাঁকে একটি শৌচাগারে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

এ ঘটনায় আজ শনিবার দুপুরে ওই নারী শ্রমিকের মা বাদী হয়ে কারখানার এক সহকর্মী শ্রমিককে অভিযুক্ত করে কালিয়াকৈর থানায় মামলা করেছেন।

ধর্ষণের পর ঘটনাটি কাউকে জানালে হত্যার হুমকি দিয়ে আইয়ুব ওই নারীকে সেখানে রেখে চলে যান। ওই নারী পরে বিষয়টি তাঁর পরিবারের লোকজনকে জানালে আজ সকালে পরিবার কালিয়াকৈর থানায় অভিযোগ দায়ের করে। বিকেলে কালিয়াকৈরের লতিফপুর এলাকার ভাড়া বাসা থেকে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, এ ঘটনায় ওই নারী শ্রমিকের মা বাদী হয়ে আজ দুপুরে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা করেছেন। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের পর তাঁকে গাজীপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন