বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও আন্দোলনরত শ্রমিকেরা জানান, শ্রমিকদের দুই মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। এ ছাড়া কারখানার কর্মকর্তাদের পাঁচ মাসের বেতন বকেয়া আছে। একাধিকবার বেতন দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হলেও তাঁদের বেতন দেওয়া হচ্ছে না। আজ সকালে শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করার কথা থাকলেও কর্তৃপক্ষ তাঁদের বেতন না দিয়ে টালবাহানা করে।

বেলা দেড়টার দিকে বিরতির সময়ে শ্রমিকেরা একত্র হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। এতে মহাসড়কের উভয় পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা করে। পরে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে শ্রমিকেরা সড়ক ছেড়ে দিলে যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

কারখানার শ্রমিক আসলাম হোসেন বলেন, গত সেপ্টেম্বর ও চলতি মাসের বেতন গত মঙ্গলবার দেওয়ার কথা থাকলেও কর্তৃপক্ষ কথা রাখেনি। আজ তা পরিশোধের কথা ছিল। কিন্তু দুপুর পর্যন্ত বেতন না দেওয়ায় শ্রমিকেরা উত্তেজিত হয়ে কাজ বন্ধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন।

আরেক শ্রমিক খোরশেদ আলম বলেন, বেতন পরিশোধ করা না হলে শ্রমিকদের বিক্ষোভ অব্যাহত থাকবে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, শ্রমিকদের বেতন পরিশোধের জন্য কারখানার মালিকপক্ষের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করা হচ্ছে। সন্ধ্যার দিকে শ্রমিকদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন