বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শ্রমিক ও পুলিশ জানায়, শ্রমিকদের গত সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। বারবার শ্রমিকদের বেতন পরিশোধের আশ্বাস দিলেও কারখানা কর্তৃপক্ষ তা পরিশোধ করছে না। এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ বেলা সোয়া তিনটার দিকে বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকেরা কারখানার সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে তাঁরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে অবরোধ এবং একপর্যায়ে মহাসড়কে কাঠ ফেলে অগ্নিসংযোগ করেন। এতে মহাসড়কের দুই পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এ সময় হাজার হাজার মানুষ আটকা পড়ে ভোগান্তিতে পড়েন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিকেল সোয়া চারটার দিকে শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়। এরপর ক্রমে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

শ্রমিকেরা ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে অবরোধ এবং একপর্যায়ে মহাসড়কে কাঠ ফেলে অগ্নিসংযোগ করেন। এতে মহাসড়কের দুই পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

কারখানার শ্রমিক আসাদুল ইসলাম বলেন, ‘এক মাস ধরে কারখানায় কাজ নেই। গত দুই মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। কারখানা কর্তৃপক্ষ বেতন দিই দিচ্ছি করে দিচ্ছে না। বাধ্য হয়ে শ্রমিকেরা বেতন পরিশোধের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন।’

গাজীপুর মেট্রোপলিটন বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মালেক খসরু বলেন, কারখানার শ্রমিকেরা বকেয়ার দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ এবং কিছু লাকড়ি দিয়ে আগুন জ্বালান। খবর পেয়ে পুলিশ শ্রমিকদের বুঝিয়ে তাঁদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেন। কিছু সময় যান চলাচল বিঘ্নিত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কারখানা এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন