default-image

গাজীপুর সিটি করপোরেশন এলাকায় মধ্য ছায়াবীথি এলাকায় গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে মাদক ব্যবসার আধিপত্য নিয়ে পূর্ববিরোধের জেরে সাদেক আলী (৩০) নামের এক যুবক খুন হয়েছেন।

সাদেক আলী (৩০) শেরপুরের ঝিনাইগাতি থানার বাঁকাকোরা গ্রামের মো. শাহ আলমের ছেলে। তিনি স্থানীয় আশিকের বাড়ির ভাড়াটে। মৃত সাদেক পেশায় একজন স্যানিটারি মিস্ত্রি ছিলেন।

পুলিশ ও এলাকার কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গাজীপুর মহানগরের পশ্চিম ভূরুলিয়া এলাকার শফিকুল ইসলামের ছেলে কাওসার আহমেদ (২৫) এবার স্থানীয় কাজী আজিম উদ্দিন কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় পাস করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে মাদক ব্যবসার আধিপত্য নিয়ে পূর্বশত্রুতার জের ধরে জুনিয়র–সিনিয়র দ্বন্দ্বে ওই খুনের ঘটনা ঘটেছে। কাওসার রাত ১০টার দিকে মধ্য ছায়াবীথী এলাকার গোপাল জেনারেল স্টোর নামের মুদিদোকানের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। ওই সময় সাদেক পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় সালাম না দেওয়ায় কাওসারের সঙ্গে সাদেকের কথা–কাটাকাটি এবং হাতাহাতি হয়। একপর্যায়ে কাওসার তাঁর সঙ্গে থাকা ধারালো অস্ত্র উঁচিয়ে সাদেককে ধাওয়া করে। পরে স্থানীয় আশরাফ উদ্দিন ইঞ্জিনিয়ারের বাড়ির সামনে পৌঁছালে কাওসার তাঁর হাতের অস্ত্র দিয়ে সাদেকের গলার ডান দিকে আঘাত করলে গুরুতর জখম হয়ে মাটিতে পড়ে যান তিনি।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় ব্যক্তিরা সাদেককে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা সাগর আহমেদ জানান, তাঁদের মধ্যে মাদক ব্যবসা নিয়ে পূর্ববিরোধের জেরেই ওই খুনের ঘটনা ঘটেছে।

গাজীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম জানান, কাওসারকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন