বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউনিয়নের চারিগ্রাম এলাকায় শিকড় অ্যাগ্রো লিমিটেডের খামারে রানিকে লালন–পালন করা হচ্ছিল। গত ২০ আগস্ট অসুস্থ হয়ে রানি মারা যায়। তবে এর আগেই জুলাই মাসে পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট গরু হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের স্বীকৃতির জন্য আবেদন করা হয়।

শিকড় অ্যাগ্রো লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মো. আবু সুফিয়ান বলেন, শখের বশে প্রায় এক বছর আগে নওগাঁর প্রত্যন্ত গ্রামের এক কৃষকের খামার থেকে গরুটি কেনা হয়েছিল। পরে এর নাম রাখা হয় রানি। সে সময় খামারের ১০টি ভুটানের বক্সার ভুট্টি জাতের গরুর সঙ্গে রানিকে লালন–পালন করা হয়। এর মধ্যে দুই বছর বয়সী রানি ছিলো সবার ছোট। আবেদনের সময় গরুটির ওজন ছিল ২৬ কেজি আর উচ্চতা ২০ ইঞ্চি ও লম্বায় ২৭ ইঞ্চি। বয়স হয়েছিল ২৩ মাস।

আবু সুফিয়ান প্রথম আলোকে বলেন, ‘রানির সব ধরনের তথ্য পর্যালোচনা শেষে গতকাল রাতে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডস কর্তৃপক্ষ এ স্বীকৃতি দিয়েছে। গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের ওয়েবসাইটেও এটি প্রকাশ করা হয়েছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন