বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দলীয় কর্মী-সমর্থক ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়াকে ঘিরে বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী ও সমর্থক সকাল থেকে ধারাবারিষা ইউপি কার্যালয়সংলগ্ন মাঠে জমায়েত হন। বেলা ১১টার দিকে চেয়ারম্যান মতিনের নেতৃত্বে শত শত মোটরসাইকেল, পিকআপ, শ্যালো ইঞ্জিনচালিত যান ও ব্যাটারিচালিত ভ্যানের বিশাল বহর নিয়ে শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি উপজেলা সদর হয়ে ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ শেষ ওই মাঠে জমায়েত হয়।

আবদুল মতিন পরপর দুই মেয়াদে ইউপি চেয়ারম্যান, তৃতীয়বারের মতো নির্বাচন করছেন। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় সাংসদ আবদুল কুদ্দুসের অনুসারী।

সেখানে এক সভায় কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল মতিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. আলাল শেখ, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আরিফুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রবিউল করিম, ধারাবারিষা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রিপন আলী, মিল্টন উদ্দিন প্রমুখ। সভা শেষে মাঠে চলে ভূরিভোজের আয়োজন।

অনুষ্ঠানস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, মাঠের উত্তর পাশের ১০টি চুলায় রান্না হচ্ছে খিচুড়ি। রাঁধুনি আবদুল মজিদের নেতৃত্বে চলছে রান্নার কাজ। রাঁধুনির তথ্যমতে, ২২ মণ চালের খিচুড়ি রান্না হয়েছে। ১০টি ডেকচিতে চারবারে এই খিচুড়ি রান্না হয়েছে। সকাল নয়টায় শুরু হয় খিচুড়ি রান্না। বেলা দুইটায় মাঠে বসিয়ে খাবার পরিবেশন শুরু হয়।

default-image

বিপুলসংখ্যক কর্মী-সমর্থকের আপ্যায়ন প্রসঙ্গে চেয়ারম্যান আবদুল মতিন বলেন, ‘চেয়ারম্যান হিসেবে ১০ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করছি। তৃতীয় মেয়াদে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে বিপুল উৎসাহ কাজ করছে। এসব মানুষের কথা মাথায় রেখে সামান্য আয়োজন করেছি।’

জানতে চাইলে নির্বাচন ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ফেরদৌস আলম বলেন, মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা ও কর্মীদের ভূরিভোজ নির্বাচনী আচরণবিধির পরিপন্থী। কোনো প্রার্থী এ রকম কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত থাকলে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তা ছাড়া পুলিশ প্রশাসনকে আচরণবিধির দিকে নজর রাখতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন