default-image

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. আলাল শেখকে দলীয় পদ থেকে বহিষ্কার দেওয়া হয়েছে। দলের ‘বিদ্রোহী’ মেয়র প্রার্থী ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আরিফুল ইসলামের পক্ষে কাজ করায় সংগঠন থেকে তাঁকে বহিষ্কার করা হয়। আজ সোমবার জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রুহুল আমিন স্বাক্ষরিত চিঠিতে এটি নিশ্চিত করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন খানের নির্দেশে আলাল শেখকে উপজেলা যুবলীগের সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়। আজ থেকে বহিষ্কারাদেশ কার্যকর করা হয়েছে।

ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, উপজেলা যুবলীগের সভাপতির পদে থেকে আলাল শেখ আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. শাহনেওয়াজ আলীর (নৌকা) পক্ষে নির্বাচন না করে দলের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী আরিফুল ইসলামের (নারকেলগাছ) পক্ষে কাজ করছেন। এমনকি ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর সমর্থনকারী ছিলেন আলাল শেখ। অথচ গুরুদাসপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হিসেবে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করা তাঁর নৈতিক ও সাংগঠনিক দায়িত্ব। সংগঠন পরিপন্থীভাবে দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করা ও সমর্থন দেওয়ায় সংগঠনের শৃঙ্খলা লঙ্ঘিত ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে, যা সংগঠনের গঠনতন্ত্র পরিপন্থী। এই অবস্থায় গঠনতন্ত্রের ২২(ক) ধারা মোতাবেক বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন খানের নির্দেশে আলাল শেখকে উপজেলা যুবলীগের সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হলো। আজ থেকে বহিষ্কারাদেশ কার্যকর করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মো. আলাল শেখ বলেন, আদেশের চিঠিটি এখনো হাতে পাননি। তবে সংগঠনের পক্ষ থেকে একটি কারণ দর্শানোর নোটিশ হাতে পেয়েছিলেন ৬ জানুয়ারি। তার দুই দিন পর নোটিশের জবাবও দিয়েছিলেন। তবে নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দের আগ পর্যন্ত বিদ্রোহী প্রার্থী আরিফুল ইসলামের পক্ষে কাজ করলেও এখন করছেন না বলে দাবি করেন তিনি। উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দাপ্তরিক কাজে ব্যস্ত থাকায় দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ গ্রহণ করা হয়ে ওঠেনি বলে ব্যাখ্যা দেন তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন