বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সদর ভবানীগঞ্জে জমি রেজিস্ট্রির কাজ শেষ করে ইউনুস আলী বাড়ি ফিরে ঘরের দরজা বন্ধ পান। দরজার ফাঁক দিয়ে দেখেন, বৈদ্যুতিক পাখার সঙ্গে তাঁর স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন ঝুলে আছেন। প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে তাঁকে মৃত অবস্থায় পান। খবর পেয়ে রাতে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে গৃহবধূর লাশটি উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় গৃহবধূর বাবা সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে বাগমারা থানায় মামলা করেন। সেই মামলায় অভিযুক্ত ইউনুস আলীকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। সাইফুল ইসলামের অভিযোগ, তাঁর মেয়েকে আত্মহত্যায় বাধ্য করা হয়েছে। এ ঘটনায় তিনি তাঁর জামাতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, গৃহবধূকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় গ্রেপ্তার ইউনুস আলীকে আজ সকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। গৃহবধূর লাশের ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন