মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৪ সালের ২ সেপ্টেম্বর রাত ১১টার দিকে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার একটি গ্রাম থেকে বিয়ের দাওয়াত খেয়ে স্বামীর সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন ওই নারী। পথে আসামি একরামুল হক ও আবুল কালাম আজাদ অস্ত্রের মুখে স্বামীকে একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে তাঁর স্ত্রীকে অপহরণ করে তুলে নিয়ে যান। এরপর একটি নির্জন স্থানে নিয়ে গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণ করে ফেলে চলে যান আসামিরা। তাঁর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে দুজনকে উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে পীরগঞ্জ থানায় ঘটনার নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেন। তদন্ত শেষে মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা উপরিদর্শক ইকবাল বাহার দুই আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলায় ১৫ জন সাক্ষীর মধ্যে আদালতে ১২ জন সাক্ষ্য দেন। দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে মামলা চলার পর আজ বিচারক দুই আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে ধর্ষণের অভিযোগে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং অপহরণের অভিযোগে ১৪ বছর সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন। রায় ঘোষণার পর দুই আসামিকে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন