বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, কিছু বর্বর লোক মধ্যযুগীয় কায়দায় নারীর ওপর নির্যাতন করেছে। নারীর বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়েছে। যারা এ ঘটনায় জড়িতদের প্রশ্রয় দিচ্ছে বা দেবে এবং এ ধরনের কর্মকাণ্ডে উদ্বুদ্ধ করবে, তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি জানান, এ ঘটনার পর পরই ১৫ এপ্রিল নির্যাতনের শিকার আকলিমার শ্বশুর বাদী হয়ে ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে ১০ থেকে ১৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে বাউফল থানায় একটি মামলা করেছেন।

ব্রিফিংয়ে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মুকিত হাসান ও বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) আল মামুন।

চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের দুই ইউপি সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে বৃহস্পতিবার সংঘর্ষ হয়। এতে দুই পক্ষের কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছেন। ওই সংঘর্ষের সময় আকলিমা তাঁর স্বামীকে বাঁচাতে গেলে তাঁর ওপর বর্বর হামলা করে সন্ত্রাসীরা। যার কিছু অংশ ভিডিও করেন স্থানীয় এক যুবক। ২৫ সেকেন্ডের ওই ভিডিও গতকাল ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন