default-image

গোপালগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে সজল রায় (৩৮) নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। রোববার সকাল ৬টায় গোপালগঞ্জ-রাজশাহী ট্রেন লাইনের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার নলডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত সজল রায় গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মাঝিগাতী গ্রামের গুরুপদ রায়ের ছেলে। তিনি জনতা ব্যাংক সদর উপজেলার সাতপাড় শাখার ঋণ কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

সজলের বাবা গুরুপদ রায় বলেন, ‘আমার ছেলে অনেক দিন ধরে ডায়াবেটিস রোগে ভুগছিল। তাই প্রতিদিন সকালে হাঁটতে যেত। আজ সকালে একজন এসে বলল, “তোমার ছেলে অ্যাক্সিডেন্ট করেছে।” পরে গিয়ে দেখি আমার ছেলে আর নেই।’

বিজ্ঞাপন

গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম জানান, সকালে গোবরা স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহীগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে সজল বিশ্বাস মারা যান। তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জনতা ব্যাংক সাতপাড় শাখার ব্যবস্থাপক সমর রায় বলেন, গত বৃহস্পতিবার ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ব্যাংকে অনুপস্থিত ছিলেন সজল। আজ সকালে ট্রেনে কাটা পড়ে তাঁর মৃত্যুর খবর জানতে পেরেছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0