বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তবে গোপালগঞ্জ পৌরসভার নয়টি কেন্দ্রে লোকসমাগম কম থাকায় বেশ কিছু টিকা বেঁচে যায়। আজ সকাল ৯টা থেকে জেলার ৬৭টি ইউনিয়ন ও ৪টি পৌরসভায় টিকাদান শুরু হয়।

গোপালগঞ্জ উপজেলার করপাড়া ইউনিয়নের বলাকইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, টিকাকেন্দ্রে পুরুষদের তুলনায় নারীদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো। প্রশিক্ষিত টিকাদানকারীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে টিকা দিতে দেখা যায়।

এই কেন্দ্রে ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের জন্য ৫০০ টিকা নির্ধারিত ছিল। কিন্তু টিকা নিতে ভিড় করেন এক হাজারের বেশি মানুষ। বেলা একটায় কেন্দ্রের নির্ধারিত সব টিকা শেষ হয়ে যায়। তখনো কেন্দ্রের বাইরে অনেক মানুষ অপেক্ষায় ছিলেন।

সারিতে দাঁড়িয়ে থাকা পানাইল গ্রামের বাসিন্দা রঞ্জন বালা (৫৯) বলেন, ‘সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। যখন টিকাদানের কক্ষে ঢুকব, তখন বলে টিকা শেষ হয়ে গেছে। এত কষ্ট করে দাঁড়িয়ে থেকেও টিকা নিতে পারলাম না।’

এই কেন্দ্রে টিকা নিতে সক্ষম হন ইউনিয়নের বলাকইড় উত্তরপাড়া গ্রামের শিউলি বেগম (৭৫)। তিনি বলেন, খুব সকালে অনেক কষ্ট করে তিনি কেন্দ্রে আসেন। টিকা নেওয়ার আগে একটু ভয়ে ছিলেন। তবে নেওয়ার পর ভালো লাগছে।

এদিকে বেলা একটায় টিকা শেষ হয়ে যাওয়ায় সারিতে দাঁড়িয়ে থাকা অনেককে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায়। করপাড়া ইউনিয়নের তাড়গ্রামের আসাব মোল্লা (৮৫) ও সাকেলা বেগম (৬৫) বলেন, ভ্যানে করে কেন্দ্রে এসে সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। কাজ ফেলে দূর থেকে এসেও টিকা না পেয়ে বাধ্য হয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে।

সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার ২১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৩৬ হাজার, টুঙ্গিপাড়ার ৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৯ হাজার, কোটালীপাড়ার ১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ১৮ হাজার জনকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এ ছাড়া কাশিয়ানীর ১৪টি ইউনিয়নে ২১ হাজার ও মুকসুদপুর উপজেলায় ১৬টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ২৫ হাজার ৫০০ জনকে টিকা দেওয়ার কথা।

গোপালগঞ্জ সিভিল সার্জন কার্যালয়ের চিকিৎসা কর্মকর্তা সাকিবুর রহমান বলেন, কিছু কিছু কেন্দ্রে টিকা না পেয়ে অনেকে ফিরে গেছেন। অন্যদিকে পৌরসভার ৯টি কেন্দ্রে ৪ হাজার ৫০০ ডোজ টিকা বরাদ্দ করা হয়েছে। পৌরসভার অধিকাংশ কেন্দ্রে টিকা থেকে গেছে। যেসব কেন্দ্রে টিকা না পেয়ে মানুষ ফিরে যাচ্ছেন, সেসব কেন্দ্রে পৌরসভা থেকে টিকা পাঠানোর চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন