বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আইয়ুব আলী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে ২৮ ডিসেম্বর এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগ পাওয়ার কথা নিশ্চিত করে ওই ইউপির রিটার্নিং কর্মকর্তা ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ আলম পারভেজ মুঠোফোনে বলেন, ওই কেন্দ্রে শতভাগ ভোট পড়ার বিষয়টি অস্বাভাবিক। তবে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তার দেওয়া ভোটের হিসাব করেই ফলাফল ঘোষণা করা হয়ে থাকে। এ বিষয়ে তাঁদের করণীয় কিছু নেই। এটা আইনের মাধ্যমে সমাধান হতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে বাইগুনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব) মহিমাগঞ্জ শাখার কর্মকর্তা সাকিল আহম্মেদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় শুনে ‘ভুল নম্বর’ বলে ফোন কেটে দেন।

অভিযোগ পাওয়ার কথা নিশ্চিত করে ওই ইউপির রিটার্নিং কর্মকর্তা ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ আলম পারভেজ মুঠোফোনে বলেন, ওই কেন্দ্রে শতভাগ ভোট পড়ার বিষয়টি অস্বাভাবিক।

অভিযোগকারী প্রার্থী আইয়ুব আলী বলেন, ভোট গ্রহণ শেষে ওই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা তাড়াহুড়া করে ফলাফল শিট তৈরি করেন। এ বিষয়ে দায়িত্বরত ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা, প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যদের মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েও তিনি কোনো প্রতিকার পাননি। আইয়ুব আলী বলেন, একটি কেন্দ্রে কোনোভাবেই শতভাগ ভোট পড়তে পারে না। পাঁচ বছর পর নির্বাচন হলো। এর মধ্যে অনেকেই মারা গেছেন। কেউ দূরে চাকরি করেন। অনেকে ব্যস্ততার কারণে ভোট দিতে পারেননি। এসব ভোট নৌকা প্রতীকে কারচুপির মাধ্যমে দেওয়া হয়েছে। নৌকার প্রার্থী আনিছুর রহমান তাঁর লোকজন দ্বারা ওই কেন্দ্রে পরিকল্পিত ও অবৈধভাবে ভোট গ্রহণ করেন। তাই ওই কেন্দ্রের ফলাফল বাতিল করে পুনরায় নির্বাচন দিতে হবে।

প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ঘোষিত ফলাফল বিবরণীর বরাত দিয়ে লিখিত অভিযোগে বলা হয়, এই কেন্দ্রে মোট ২ হাজার ১১৭ ভোটের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিজয়ী প্রার্থী আনিছুর রহমান নৌকা প্রতীকে ২ হাজার ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী আইয়ুব আলী চশমা প্রতীকে ১০, আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু তাহের ৫, আমির হোসেন ১০, ইমরান হোসেন ১৫, রাসেল মোসারফ ৭ এবং মিহিলিকা বেগম ৩ ভোট পান। এই কেন্দ্রে ৬৭ ভোট বাতিল দেখিয়ে শতভাগ ভোট পড়েছে বলে দেখানো হয়।

বিজয়ী নৌকার প্রার্থী আনিছুর রহমান ভোট গ্রহণের দিন প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়ে চিকিৎসাধীন। এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে তাঁর মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন