বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
আগামীকাল বুধবার দৌলতদিয়া ইউপি, বৃহস্পতিবার ছোটভাকলা ইউপি এবং শনিবার উজানচর ইউপি কেন্দ্রে দ্বিতীয় ডোজ গণটিকা দেওয়া হবে।

এদিকে টিকা কক্ষের বাইরে নিবন্ধন যাচাই–বাছাইয়ের জন্যও মানুষের ভিড় ছিল। এর মধ্যে কেউ কেউ নিবন্ধনের ফটোকপি বা হাতে লেখা নিবন্ধন কপি আনায় বিড়ম্বনার শিকার হন।

উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নের চর বারকিপাড়া থেকে আসা আবদুল মজিদ বলেন, টিকার কার্ডে একধরনের মনোগ্রাম থাকে। সেটা না থাকায় আজ তিনি টিকা নিতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছে। অথচ তাঁর কার্ডের ওপর ৭ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রদানের তারিখ দেওয়া আছে। এর আগে গত ৭ আগস্ট তিনি প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন।

দেবগ্রাম ইউনিয়নের কাওয়ালজানি গ্রাম থেকে টিকা নিতে এসেছেন ষাটোর্ধ্ব জব্বার শেখ। আগেভাগে টিকা নেবেন বলে সকাল ৯টায় তিনি হাসপাতালে আসেন। কিন্তু হাসপাতালে এসে দেখেন ততক্ষণে সেখানে লম্বা লাইন। এরপর আবার কয়েক দফা বৃষ্টি হওয়ায় লাইন ভেঙে গেলে সবাই বারান্দায় গাদাগাদি করে অবস্থান নেন। প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর বেলা সাড়ে ১১টার দিকে টিকা নিতে সক্ষম হন বলে জানান তিনি।

default-image

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আসিফ মাহমুদ জানান, আজ সকাল থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত ৩০০ জনকে সিনোফার্ম ও ৫ শতাধিক মানুষকে কোভিশিল্ডের টিকা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু হাসপাতালে পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় সেখানে বিশ্রামের ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।

এদিকে একই সঙ্গে দেবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) কেন্দ্রে দুপুর পর্যন্ত সেখানে প্রায় ৩৫০ জনকে সিনোফার্মের দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এর আগে ৪৯৬ জনকে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছিল। আসিফ মাহমুদ বলেন, আগামীকাল বুধবার দৌলতদিয়া ইউপি, বৃহস্পতিবার ছোটভাকলা ইউপি এবং শনিবার উজানচর ইউপি কেন্দ্রে দ্বিতীয় ডোজ গণটিকা দেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন