default-image

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় শিয়ালের কামড়ে পাঁচজন আহত হয়েছেন। এ ছাড়া দুই কৃষকের ১০টি গবাদিপশু শিয়ালের কামড় আহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের মেঘারকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল রাতে হঠাৎ মেঘারকান্দি গ্রামে কয়েকটি শিয়াল হানা দেয়। রাত আটটার দিকে গ্রামের বাসিন্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রত্না রানী দাস ঘরের পেছনে টয়লেটে গেলে একটি শিয়াল তাঁর পায়ে কামড় দেয়। এ সময় তাঁর চিৎকারে পরিবারের লোকজন এসে তাঁকে উদ্ধার করেন। এর কিছুক্ষণ পর মেঘারকান্দি গ্রামের কলেজছাত্র কৃষ্ণ দাস (২৪) ও রাজু দাসকে (২২) শিয়াল কামড় দেয়। রাত ১০টার দিকে বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে ব্যবসায়ী বরুণ দাসকে (৪০) কামড়ায় শিয়াল। আহত পাঁচজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে মেঘারকান্দি গ্রামের কৃষক অলস দাস ও প্রসেন দাসের গোয়ালঘরে শিয়াল ঢুকে ১০টি গরুকে কামড় দিয়েছে।

মেঘারকান্দি গ্রামের বাসিন্দা রাজেন্দ্র দাস বলেন, পাগলা শিয়ালের কামড়ে মেঘারকান্দি গ্রামের পাঁচজন আহত হয়েছেন। এ ছাড়া ১০টি গরুকে কামড় দিয়েছে শিয়াল। গ্রামজুড়ে পাগলা শিয়ালের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে গ্রামবাসী মিলে পাগলা শিয়ালটি মেরে ফেলেছেন।

রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বলেন, পাগলা শিয়ালের কামড়ে মেঘারকান্দি গ্রামের মানুষ ও গবাদিপশু আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন