বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভাটারা ইউনিয়নের কৃষ্টপুর গ্রামের জহুরুল ইসলাম একই ইউনিয়নের জয়নগর এলাকার জিয়াউল হকের কাছ থেকে ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা ধার নেন। পরে টাকা না দেওয়ায় জিয়াউল হক অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ২০১১ সালে আদালতে মামলা দায়ের করেন। পরে আদালত অর্থ আত্মসাতের অপরাধে জহুরুলের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আদেশ দেন।

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর জহুরুল ইসলাম গ্রেপ্তার এড়াতে ১০ বছর ধরে পলাতক ছিলেন। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সরিষাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল করিম গতকাল রাতে টঙ্গী পুলিশের সহযোগিতায় টঙ্গী থেকে জহুরুলকে গ্রেপ্তার করেন। আজ বুধবার দুপুরে জহুরুলকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জহুরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ভাটারা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন।

সরিষাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল করিম প্রথম আলোকে বলেন, জহুরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন