বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত কিশোরের নাম জহিরুল ইসলাম (১৬)। সে পূর্ব এনায়েতনগর ইউনিয়নের মহরউদ্দিনচর এলাকার কাতারপ্রবাসী বারেক সরদারের ছেলে। জহিরুলের সমিতিরহাট এ কে উচ্চবিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল।

মামলায় অজ্ঞাত কয়েকজন দুর্বৃত্ত রাতের আঁধারে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে জহিরুলকে হত্যা করেছে বলে উল্লেখ করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গতকাল বুধবার রাতে খাবার খেয়ে জহিরুল তার ঘরে ঘুমাতে যায়। এ সময় তার মা ও ছোট বোন পাশের অন্য একটি কক্ষে ঘুমাতে যায়। সকালে জহিরুল ঘুম থেকে না উঠলে জহিরুলের মা ছেলের শয়নকক্ষে প্রবেশ করেন। এ সময় ছেলের গলাকাটা লাশ দেখে তিনি চিৎকার শুরু করেন। খবর পেয়ে কালকিনি থানার পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরে জহিরুলের লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

মামলার বাদী শাহীন সরদার প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি ঢাকায় ছিলাম। ভাইয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে গ্রামে চলে আসছি। কারা আমার ভাইকে মারছে, তা জানি না। তবে যারাই আমার ভাইকে মারছে, তারা খুবই নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করছে। পুলিশের কাছে এ ঘটনার তদন্ত করে আসল অপরাধীকে গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।’

কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইসতিয়াক আশফাক বলেন, মামলায় অজ্ঞাত কয়েকজন দুর্বৃত্ত রাতের আঁধারে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে জহিরুলকে হত্যা করেছে বলে উল্লেখ করা হয়। ঘটনাটি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। খুনি যে-ই হোক, দ্রুতই তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন