default-image

‘রাগের মাথায় ঘুষি মেরে স্ত্রীকে মেরেছি’—এ কথা বলে থানায় গিয়ে পুলিশে ধরা দিয়েছেন এক তরুণ। তাঁর ভাষ্য শুনে পুলিশ তরুণকে আটক করে। পরে বাড়িতে নিয়ে পুলিশ জানতে পারে তাঁর স্ত্রীর লাশ পড়ে আছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটার দিকে সিলেট মহানগরের মোগলাবাজার থানায় এভাবেই আত্মসমর্পণ করেন তরুণটি। তাঁর নাম মোহাম্মদ সাহিদ আহমদ (২৭)। বাড়িতে গিয়ে পুলিশ তাঁর স্ত্রী লাকি বেগমের (২৫) লাশ উদ্ধার করেছে।

মহানগর পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিস রাত ১০টার দিকে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানায়, সাহিদ আহমদের বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার কুচাই ইউনিয়নের শ্রীরামপুরে। স্ত্রীর সঙ্গে বচসার জের ধরে তাঁর তলপেটে ও বুকের এক পাশে কয়েকটি ঘুষি দেন তিনি। ঘটনাস্থলেই স্ত্রী মারা যান। স্ত্রী মারা যাওয়ার অনুশোচনা থেকে সাহিদ থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করেন। তাঁদের পাঁচ মাস বয়সী এক মেয়ে রয়েছে। সাহিদ পেশায় অনলাইন ভিডিও ফটোগ্রাফার।

বিজ্ঞাপন

মোগলাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শামসুদ্দুহা প্রথম আলোকে জানিয়েছেন, তরুণের কথামতো বাড়িতে গিয়ে তাঁর স্ত্রীর লাশ পাওয়া গেছে। স্ত্রীর শরীরে এলোপাতাড়িভাবে ঘুষির জখমের চিহ্ন দেখা গেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
প্রাথমিকভাবে দাম্পত্য কলহের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে জানিয়ে ওসি বলেন, থানায় আত্মসমর্পণ করা তরুণকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন