বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে র‍্যাম্পের পিলারে ‘ফাটলের’ খবরে গত ২৫ অক্টোবর রাত থেকে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। মূল উড়ালসড়ক ও নিচের সড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক ছিল। আর নকশা প্রণয়নকারী প্রতিষ্ঠানের কারিগরি বিশেষজ্ঞ দল সরেজমিনে দেখে জানায়, পিলারে কোনো ফাটল নেই। এ ছাড়া চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নিরপেক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করে। সেই কমিটিও পিলারে ফাটল নেই বলে বৃহস্পতিবার প্রতিবেদন দেয়।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) নগরের বহদ্দারহাট এলাকার যানজট নিরসনে নগরের শুলকবহর থেকে এক কিলোমিটার এলাকা পর্যন্ত উড়ালসড়ক নির্মাণ করেছে। ২০১৩ সালের ১২ অক্টোবর উড়ালসড়কটির উদ্বোধন হয়। তবে সেই উড়ালসড়ক উপযোগী না হওয়ায় স্থানীয় লোকজনের দাবির মুখে র‍্যাম্প নির্মাণ করা হয়। এটি ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে গাড়ি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছিল। সিডিএ নগরের তিনটি উড়ালসড়ক ও একটি ওভারপাস রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তর করে।

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপক এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের এক তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর সমন্বয়ে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে তিনটি সুপারিশ করা হয়েছে। এগুলো হলো, র‍্যাম্পের যে অংশে ফোম বেরিয়ে গেছে, সেটি যথাযথভাবে পরিষ্কার করে দিতে হবে। উড়ালসড়কের র‍্যাম্পে হালকা যান চলাচলের সুযোগ রাখতে হবে এবং সেটি নিশ্চিত করা জরুরি। এ ছাড়া উড়ালসড়কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অংশ তদারকি করতে হবে।

সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম শুক্রবার প্রথম আলোকে বলেন, নিরপেক্ষ তদন্ত কমিটি উড়ালসড়ক ও র‍্যাম্পের বিষয়ে তিনটি পরামর্শ দিয়েছিল। সে অনুযায়ী কাজ করার পর রোববার সন্ধ্যায় গাড়ি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন