বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আহত যুবকের নাম মো. আরিফ। বুধবার বিকেলে নগরের পাঁচলাইশ থানার মির্জারপুল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর আরিফকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরদিন বৃহস্পতিবার তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখন তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়, মির্জারপুল এলাকায় ফুটপাতে দোকান বসিয়ে চাঁদা আদায় করে আসছেন স্থানীয় মো. আরিফ ও মো. ওয়াহিদ। কিছুদিন আগে ফুটপাতের দোকানগুলো তুলে দেয় পুলিশ। বুধবার সেখানে দোকান বসান আরিফ। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ওয়াহিদ তাঁর অনুসারীদের নিয়ে আরিফের ওপর হামলা চালান। খবর পেয়ে আরিফের অনুসারীরাও সেখানে জড়ো হন। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের একপর্যায়ে আরিফকে কুপিয়ে আহত করা হয়। সড়কে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়ালে আশপাশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বন্ধ করে দেওয়া হয় দোকানপাট। প্রায় দশ মিনিট বন্ধ থাকে মির্জারপুল–মুরাদপুর সড়ক। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবির প্রথম আলোকে বলেন, ফুটপাতে দোকান বসিয়ে চাঁদাবাজিকে ঘিরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন আহত হয়েছেন। জড়িত অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, সাদা পাঞ্জাবি পরা এক যুবক কালো শার্ট পরা এক যুবককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকেন। নগরের মির্জারপুল এলাকার একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির নিচে আরিফ লুটিয়ে পড়লে তাঁকে ইট দিয়ে আঘাত করা হয়।
পুলিশ সূত্র জানায়, আহত আরিফের বিরুদ্ধে নগরের শুলক বহর এলাকার মো. মাহফুজুর রহমান হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

আরিফের ভাই কামাল উদ্দিন প্রথম আলোকে জানান, চাঁদা না পেয়ে ওয়াহিদ ও তাঁর অনুসারীরা তাঁর ভাইকে কুপিয়ে আহত করেন। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার চান তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন